Loading...
You are here:  Home  >  আইন বিষয়ক বই  >  Current Article

বিএসটিআই লাইসেন্স করার নিয়ম

By   /  13/01/2018  /  Comments Off on বিএসটিআই লাইসেন্স করার নিয়ম

    Print       Email

BSTI লাইসেন্স পাওয়ার উপায়

 

রফিক একজন খুদ্র উদ্যোক্তা। তার ঢাকার কেরানীগঞ্জে একটি বেকারির কারখানা আছে, যেখান থেকে সে  রুটি এবং বিস্কুট প্রস্তুত করে থাকে। তার কারখানা থেকে উৎপাদিত রুটি এবং বিস্কুট স্থানীয়ভাবে খুবিই জনপ্রিয় । কিন্তু ইদানিং স্থানীয় প্রশাসন তার কারখানার উৎপাদন বাধাগ্রস্থ করছে, তারা বলছে উৎপাদন চালাতে হলে আপনাকে BSTI থেকে অনুমোদন নিতে হবে।

রফিক এখন খুব চিন্তায় পরে গেল কিভাবে কোথায় থেকে  সে তার রুটি এবং বিস্কুটের জন্য BSTI এর অনুমোদন নিবেন

 

BSTI মানে হল – বাংলাদেশ স্টান্ডার্স এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন  

এই প্রতিষ্ঠানের কাজ হল – খাদ্যদ্রব্য, কৃষিপণ্য, পাটবস্ত্র, রাসায়নিক পদার্থ এবং বৈদ্যুতিক প্রযুক্তি পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণ এবং তদারকি করা। বর্তমানে বাংলাদেশে ১৫৪ টি পন্যেকে বাজারজাতকরন করতে হলে বাধ্যতামূলকভাবে BSTI এর অনুমোদন নিতে হবে। এছাড়া অন্যান্ন পন্য দ্রব্য চাইলেই BSTI এর অনুমোদন নিতে পারবে।

অর্থাৎ সরকারি তালিকাভুক্ত ১৫৪ টি পন্য বাজারে বিক্রি করতে চাইলে উক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিককে অবশ্যই BSTI থেকে অনুমোদন নিতে হবে । এছাড়া তালিকার বাহিরে থাকা অন্যান্ন পন্য দ্রব্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো চাইলে BSTI থেকে অনুমোদন নিয়ে রাখতে পারে তবে তাদের জন্য BSTI থেকে অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক নয়।

 

BSTI এর বাধ্যতামূলক লাইসেন্সের তালিকাভুক্ত ১৫৪টি পন্যের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ

ভোজ্য তেল, চিনি, আটা, ময়দা, সুজি, পাউয়া রুটি, বিস্কুট, কেক, জুস, আইসক্রিম, খাবার পানি, সাবান, স্নো, পাউডার, ডিটারজেন, টুথপেস্ট, হেয়ার অয়েল, লিপিস্টিক, সেভিং ক্রিম, সিমেন্ট, বৈদ্যুতিক তার ইত্যাদি

এছাড়া BSTI এর বাধ্যতামূলক ১৫৪ টি পন্যের পুরো তালিকা দেখতে পারেন নিচের ওয়েবসাইট থেকে

bdainkanun.com/bsti-154

 

তো চলুন এখন আমরা দেখবো কিভাবে রফিক তার রুটি এবং বিস্কুটের জন্য BSTI থেকে অনুমোদন নিবেন

 

প্রথমেই দেখে নেই  BSTI থেকে অনুমোদন পাওয়ার জন্য কি কি কাগজপত্র থাকতে হবেঃ

*  প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্সের কপি

* ট্রেড মার্ক রেজিস্ট্রেশনের কপি

* TIN সার্টিফিকেটের কপি

* পন্য উৎপাদনে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির তালিকা

* পন্য উৎপাদনের প্রসেস ফ্লো চার্ট

* কারখানার লেয়াউট

* পন্যের মোরক/ লেবেলে থাকা সকল তথ্যবলী

* পন্য উৎপাদনের উপাদানগুলোর বিবরন

এছাড়া প্রয়োজন মাপিক আরো কাগজপত্র লাগতে পারে।

 

উপরোক্ত কাগজপত্রগুলো প্রস্তুত করে এবার আপনাকে জেতে হবে তেজগাঁও শিল্প এলাকার BSTI এর অফিসে । সেখান থেকে BSTI লাইসেন্সের আবেদন ফরম নিতে হবে । আপনি চাইলে নিচের ওয়েবসাইট থেকেও আবেদন ফরমটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন.

Download

 

আবেদন ফরম যথাযথভাবে পুরন করে নির্ধারিত আবেদন ফি জমা দিতে হবে । আবেদন ফি প্রাদানের পর সমস্ত কাগজপত্রগুলো একত্র করে BSTI এর One Stop Service Center এ জমা প্রদান করতে হবে । সেখান থেকে তারা আপনাকে একটি Confirmation শ্লিপ প্রদান করবে ।

এরপর সাধারণত ১-২ মাসের মধ্যে BSTI কর্মকর্তারা আপনার কারখানা পরিদর্শন করবে । সেখানে গিয়ে তারা আপনার কারখানার উৎপাদিত পন্য থেকে কিছু পন্য স্যাম্পল হিসবে সিল করবে এবং আপনার কারখানার আনুসাংগিক বিষয়গুলো যাচাই করে দেখবে ।

এরপর আপনাকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্ধারিত টেস্টিং ফি প্রদানপূর্বক তাদের সিলকৃত পুনরায় BSTI এর One Stop Service Center এ গিয়ে জমা প্রদান করতে হবে ।

এরপর BSTI ল্যাবে আপনার পন্যের পরীক্ষা করা হবে এবং মান যাচাই করা হবে । BSTI এর নির্ধারিত মানের সাথে যদি আপনার উৎপাদিত পন্যের মান সামঞ্জস্যপূর্ণ হয় তবে তারা আপনাকে চূরান্ত লাইসেন্সের জন্য জানাবে।

চূড়ান্ত লাইসেন্স ফি প্রাদানের মাধ্যমে আপনি পেয়ে জাবেন BSTI এর লাইসেন্স.

BSTI থেকে লাইসেন্স সম্পর্কে আরো কোন প্রশ্ন থাকলে ফোণ করুন – 019175-68940

 

ধন্যবাদ সবাইকে.

 

 

    Print       Email

You might also like...

প্রযুক্তির কারণে হুমকিতে পড়তে পারে আইনজীবীসহ যে ৭ পেশা

Read More →