Loading...
You are here:  Home  >  কপিরাইট  >  Current Article

কপিরাইট নিবন্ধন করার উপায়

By   /  29/03/2018  /  Comments Off on কপিরাইট নিবন্ধন করার উপায়

    Print       Email

 শোভা একজন সংগীত প্রেমী নারী । তার নিজের লেখা কিছু গান আছে ।   সে তার লেখা কয়েকটি গান ফেইসবুকের মাধ্যমে শেয়ার করে । কিন্তু কিছুদিন পরে সে দেখতে পেল তার লেখা গানগুলো অন্য একজন ব্যক্তি সুর করে ইউটিউবে প্রচার করছে । এবং ইউটিউবের সেই গানগুলো অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছে ।

শোভার গানগুলো জনপ্রিয় হচ্ছে এটা শোভার জন্য অত্যান্ত আনন্দের কিন্তু একই সাথে শোভার জন্য অত্যন্ত কষ্টের একটা বিষয়ও ছিল ।   শোভার লেখা গানগুলোতে যে ব্যক্তি সুর করেছে সে ব্যক্তি  উক্ত গানের লেখকের স্থানে শোভার নাম না দিয়ে তার নিজের নামা লিখে দিয়েছেন ।

এই ঘটনা দেখে শোভা বিষণ কষ্ট পেল । কেননা নিজের সৃষ্টিতে অন্যের নাম দেখাটা অত্যান্ত কষ্টের এবং বেদনা দায়ক ।  নিজের লেখা গানগুলোতে শোভার কোন অস্তিত্বই নেই । একজন প্রতারক শোভার লেখা গানগুলোকে কপি করে নিজের নামে চালিয়ে দিয়েছে ।

শুধু শোভা নয় এরকম হাজারো প্রতিভাবান উদ্ভাবক নিজের সৃষ্টির কোন মূল্য পায়না  কিছু অসাধু প্রতারকের কারনে । এরা একধরনের প্রতারক যারা অন্যের প্রতিভাকে নিজের কর্ম বলে চালিয়ে দিচ্ছে । ফলে মেধাস্বত্ত্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন উদ্ভাবকরা।

 

এধরনের ডিজিটাল প্রতারকদের হাত থেকে উদ্ভাবকদের প্রতিভাকে রক্ষা করতে বাংলাদেশে প্রনয়ন করা হয়েছে “কপিরাইট আইন” ।কপিরাইটের মাধ্যমে একজন উদ্ভাবক তার সৃষ্ট কর্মকে নিজের নামে সরকারীভাবে নিবন্ধন করিয়ে নিতে পারবেন ।

কপিরাইট নিবন্ধনের সুবিধাঃ

কপিরাইট নিবন্ধন করলে –

  • নিজের ও উত্তরাধিকারীর মালিকানা সুরক্ষা নিশ্চিত হয়
  • আইনগত জটিলতায় মালিকানার প্রমাণপত্র হিসেবে আদালতে কপিরাইট সনদ ব্যবহার করা যায়

 

কোন কোন কর্মগুলোকে কপিরাইট আইনের মাধ্যমে নিবন্ধন করা যায়ঃ

  • গল্প
  • কবিতা
  • উপন্যাস
  • ভ্রমনকাহিনী
  • কৌতুক
  • গবেষণা বিষয়ক পুস্তুক
  • নাটকের পাণ্ডুলিপি
  • সংগীত কর্ম বা গান
  • চিত্রকর্ম
  • ভাস্কর্য
  • ফটোগ্রাফ
  • স্থাপত্যের নকশা
  • মিউজিক ভিডিও
  • টিউটোরিয়াল
  • কম্পিউটার সফটওয়্যার
  • মোবাইল অ্যাপস
  • ওয়েবসাইট
  • ভিডিও টিউট্রিয়াল
  • ডকুমেন্টারি

ইত্যাদি আরো অনেক বিষয়ক কর্ম আছে যেই কর্মগুলো আপনি কপিরাইট আইনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন ।

 

তো চলুন এখন দেখি কিভাবে শোভা তার লেখা গানগুলো কপিরাইট আইনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেঃ

এজন্য শোভাকে তার মৌলিক কর্মটি সাথে নিয়ে কপিরাইট অফিসে যেতে হবে । সেখানে তাকে আরো কিছু কাজ করতে হবে , সেগুলো হল ।

১. কর্মটি সরকারিভাবে নিবন্ধন করার জন্য নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে ।

২. নিবন্ধনের জন্য নির্ধারিত ফি বাংলাদেশ ব্যাংক / সোনালী ব্যাংকে ট্রেজারী চালানের  মাধ্যমে জমা দিতে হবে ।

৩. আবেদনকৃত কর্মের কপি আবেদনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে । সফটওয়্যার করমের ক্ষেত্রে সফটওয়্যার কর্মটি সিডি আকারে ও প্রিন্ট আকারে জমা দিতে হবে ।

৪. কর্মটি মৌলিক মর্মে আদালতে কোন মোকদ্দমা বিচারাধীন নেই এবং প্রদত্ত তথ্য নির্ভুল ঘোষনা সংবলিত ৩০০ /- টাকার স্ট্যাম্পে লিখিত অঙ্গীকারনামার কপি

৫. আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র

৬. আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি

৭. প্রতিষ্ঠানের নামে কপিরাইট নিবন্ধনের ক্ষেত্রে ট্রেডলাইসেন্স কপি

 

আরো কিছু বিষয় আছে যেগুলো সেখানে করতে হবে । এর পর সব কাগজপত্র একত্রে কপিরাইট নিবন্ধনের বরাবর জমা দিতে হবে ।

কপিরাইট অফিস থেকে আপনার কর্মটি যাচাই বাচাই করে সন্তুষ্ট হলে দ্রুত সময়ের মধ্যে আপনাকে একটি সনদ প্রদান করবে । কপিরাইট অফিস থেকে উক্ত সনদ পাওয়ার পর আপনি আপনার কর্মটির পাশে © চিহ্নটি ব্যবহার করতে পারবেন ।

সরকারি সনদ পাওয়ার পরে আপনার কর্ম কেউ আপনার অনুমতি ব্যতিত ব্যবহার করলে আপনি কপিরাইট আইনে উক্ত প্রতারকের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারবেন ।

তো আশাকরি বিষয়টি বুজতে পেরেছেন কিভাবে কপিরাইট আইনের মাধ্যমে আপনার কর্মকে সরকারীভাবে নিবন্ধন করে নিতে হয় ।

এই বিষয়ে আর কোন প্রশ্ন থাকলে ফোন করুন- 01714-543232 এই নম্বরে ।

সবাই ভালো থাকবেন ।

ধন্যবাদ

    Print       Email

You might also like...

বন্ড লাইসেন্স করার উপায়

Read More →